কেটি পেরি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন



বিনোদন ডেস্ক :

মার্কিন সংগীত তারকা কেটি পেরি মানেই যেন দর্শক মনে সৃষ্টি করে ভিন্নরকম উন্মাদনা। তার শক্তিশালী ব্যক্তিত্বের কারণেই তিনি নিজেকে এমন উচ্চতায় নিয়ে যেতে পেরেছেন। কিন্তু করোনা মহামারির কাছে তিনি নিজেও শেষমেশ আত্মসর্মপণ করেছেন। বিশ্বের এই কঠিন পরিস্থিতিতে তিনি মানসিকভাবে একেবারেই ভেঙে পড়েছেন।

চলতি বছরের শুরুতে এই গায়িকা জানিয়েছিলেন, তিনি মা হতে চলেছেন। কিন্তু এই মহামারির সময়ে তাকে কাটাতে হচ্ছে কঠিনভাবে। জানা গেছে, গর্ভাবস্থায় তিনি নাকি অজানা আতঙ্কে প্রায়ই কান্না করেন। গত ১২ মে নিজের মানসিক স্বাস্থ্য পরিস্থিতি এভাবেই প্রকাশ করেন কেটি। ‘ফায়ারওয়ার্কস’খ্যাত এই গায়িকা টুইটারে জানিয়েছেন, কীভাবে তিনি হতাশা ও করোনাভাইরাসকে কাটিয়ে যাওয়ার চেস্টা করছেন।

সম্প্রতি অনলাইনে এক অনুষ্ঠানে ৩৫ বছর বয়সী এই গায়িকা জানান, ‘ছোট কোনো কাজ করতে গিয়েও প্রায়ই তিনি ব্যথায় মুষড়ে পড়েন।’

প্রসঙ্গত গত মার্চে ‘নেভার ওর্ন হোয়াইট’ মিউজিক ভিডিওর মাধ্যমে নিজের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার খবরটি প্রকাশ্যে আনেন কেটি। ২০১০ সালে রাসেল ব্র্যান্ডকে বিয়ে করেন কেটি, কিন্তু দুই বছর পর তাদের বিচ্ছেদ হয়, এরপর ২০১৬ সালে ওরলান্ডো ব্লুমের প্রেমে পড়েন এ গায়িকা।

সেই থেকে তারা একসঙ্গে আছেন। এদিকে গতকাল মুক্তি পেয়েছে কেটির নতুন অ্যালবাম ‘ডেইজিস’। এর আগে ঝরনার ধারে ধীরে ধীরে একে একে পোশাক খুলে শেষ পর্যন্ত নিজের শরীরে সন্তান ধারণের ছবি শেয়ার করেন তিনি। অপূর্ব সেই গানের ভিডিও মুক্তি পেতেই নজর কেড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

কেটি নিজেও ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেছেন গানের ভিডিও এবং ভিডিও শ্যুটের বেশ কয়েকটি ছবি। এই গানের মাধ্যমেই ভক্তদেরকে নিজের বেবি বাম্প দেখান গায়িকা। মিউজিক ভিডিওটি ইউটিউবে মুক্তি পেয়েছে বৃহস্পতিবার। মাত্র দুই দিনেই সেটি ৩০ লাখের বেশি দর্শক দেখে ফেলেছেন।

শেয়ার করুন!