সিলেটে এক সাংবাদিক’কে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ



স্টাফ রির্পোটার, সিলেট :

সিলেটে এক সাংবাদিক’কে ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। যার মামলা নং- ১৮/৭০। তিনি হলেন, জাতীয় দৈনিক ইংরেজি মর্নিং গ্লরি পত্রিকার সিলেট ব্যুরোচীফ ও সিএনবাংলাদেশ ডট কম অনলাইন পত্রিকার সম্পাদক অরুন সরকার।

জানা গেছে, গত বছরের ২৮ এপ্রিল রাত আনূমানিক ৮টার দিকে এলিট ফোর্সের ছয়জনের একটি সিভিল দল ওই সাংবাদিক’কে সিলেটের মেজরটিলা ইসলামপুর হাজি মঞ্জিল বাসা থেকে তাকে র‌্যাব পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। এসময় তিনি অসুস্থ হয়ে জল বসন্ত রোগে ভুগছিলেন। এমতাবস্থায় র‌্যাব-৯ তাকে সন্দেহস্থলে গ্রেপ্তার দেখিয়ে শাহপরাণ রহ. থানা পুলিশের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করে। পরবর্তীতে মহামান্য হাইকোর্ট থেকে জামিন লাভ করেন তিনি। এ মামলা পর্যালোচনা করে দেখা যায় র‌্যাব-৯’র সিও সর্ম্পকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রধানদের নিয়ে কুরুচিপুর্ণ সংবাদ প্রকাশের কারনে তাকে আসামি করা হয়েছে। কিন্তু রহস্যজনক হলেও সত্য যে, সাংবাদিক অরুন সরকারের ইমেইল আইডি হতে এরকম কোন সংবাদ প্রেরিত হয়নি মর্মে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাকে হয়রানী করার উদ্দেশ্যে ষড়যন্ত্রমুলক এই মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়।

‘‘এদিকে ইতিমধ্যে এনিয়ে আইটি ফরেনসিক শাখা, বাংলাদেশ পুলিশ, সিআইডি, ঢাকা আলামত সংক্রান্তেও এরকম কোন তথ্য প্রমাণ পাওয়া যায় নি। সেই রির্পোটে স্পষ্ট উল্লেখ করা হয়েছে mobrur.saju@gmail.com এ Access এর মাধ্যমে তার মেইল আইডি থেকে অরুন সরকারের ইমেইল আইডি সহ একাধিক ইমেইল আইডিতে ২৮এপ্রিল২০১৯তারিখে সিলেট র‌্যাব-৯’র অধিনায়ক সর্ম্পকে কুরুচিপুর্ণ সংবাদ সম্বলিত একটি ডকুমেন্ট ফাইল প্রেরণ করা হয়। এতকিছুর পরও বিশিষ্ট সাংবাদিক অরুন সরকার’কে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানী করা হচ্ছে। এতে দেখা যায় মবরোর আহমেদ @ সাজু তাহার প্রেরিত সংবাদটি অরুন সরকারের মেইল আইডি সহ একাধিক মেইল ইনবক্সে প্রেরণ করেছেন। অথচ সেখানে জজ মিয়া নাটক সাজিয়ে আসামি করা হয়েছে থাকে। যেহেতু অরুন সরকারের মেইল আইডি হতে কোন সংবাদ সামাজিক ও যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল সহ প্রেরিত হয়নি সেখানে আলাদিনের চেরাগ হয়ে তিনি আদালতের কাটগড়ায় দাঁড়িয়ে আজ হাজিরা দিচ্ছেন।’’

এ ব্যাপারে শাহপরাণ রহ. থানার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সোহেলের সাথে আলাপকালে তিনি জানান, ফরেনসিক রির্পোট অনুযায়ী সাংবাদিক অরুন সরকার অব্যাহতি পাওয়ার কথা কিন্তিু র‌্যাব-৯’র অভিযোগের কারনে ইচ্ছে থাকলেও তাৎক্ষণিখ তাকে অব্যাহতি দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। তিনি এসময় বলেন, এফআই আর’র বাহিরে আমার যাওয়ার কোন এখতিয়ার নেই। পরবর্তীতে আমার ক্ষতি হতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।

শেয়ার করুন!