Sex Cams

ইরানের বিক্ষোভে নিহত ১০৬, অ্যামনেস্টি



সিএনবাংলাদেশ ডেস্ক :

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ইরানে কয়েকদিন ধরে চলা বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর দ্বারা গোটা দেশের ১০৬ জন বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন। যুক্তরাজ্যভিত্তিক আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বিশ্বস্ত সূত্রের বরাতে এই তথ্য দিয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে আলজাজিরা।

মঙ্গলবার এ নিয়ে বিবৃতি দেয় অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। তাতে মানবাধিকার সংগঠনটি গত শুক্রবার শুরু হওয়া বিক্ষোভে ইরানের নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে মাত্রাতিরিক্ত ও প্রাণঘাতী শক্তি প্রয়োগের অভিযোগ তুলে বলেছে, ‘বিশ্বস্ত প্রতিবেদনে পাওয়া তথ্যে জানা গেছে, গোটা দেশের ২১টি শহরে অন্তত ১০৬ জন বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন।’

তারা আরও জানায়, ‘বিক্ষোভকারী নিহতেদর প্রকৃত সংখ্যাটা আরও বেশি। কিছু কিছু প্রতিবেদন তো বলছে যে অন্তত ২০০ জন বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন।’ তবে মঙ্গলবার অ্যামনেস্টি এমন দাবি করলেও ইরান সরকারের পক্ষ থেকে এই বিবৃতির বিরুদ্ধে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি।

আলজাজিরা বলছে, ইরানের বিক্ষোভে হতাহতের সংখ্যা নিয়ে তাদের হাতে আসা সর্বশেষ তথ্যমতে গত পাঁচ দিনে অন্তত ১১ জন নিহত হয়েছেন। যাদের মধ্যে পাঁচজন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য এবং বাকি ছয়জন বেসামরিক নাগরিক। তবে ইরান সরকার বিক্ষোভে হতাহতের সংখ্যা সম্পর্কে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো কিছু জানায়নি।

কিন্তু ইরানের আধাসরকারি বার্তা সংস্থা আইএসএনএ গত সোমবারের এক প্রতিবেদনে জানায়, রাজধানী তেহরানে পাশে বিক্ষোভকারীদের মাধ্যমে নিরাপত্তা বাহিনীর তিনজন সদস্য নিহত হয়েছেন। একইদিনে ইরান সরকারের মুখপাত্র দাবি করেন যে, কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা বাদে গোটা দেশের পরিস্থিতি এখন শান্ত।

মানবাধিকার কর্মী ও অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের ইরান বিষয়ক গবেষন রাহা বাহরেইনি বলেন, ‘মূলত বিক্ষোভে অংশ নেয়া প্রত্যক্ষদর্শী, দেশটিতে অবস্থানরত মানবাধিকারকর্মী, স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের সাংবাদিক ও বিশ্বস্ত সূত্র থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ইরানের বিক্ষোভে নিহতের এই সংখ্যা আমরা জানতে পেরেছি।’

লন্ডনে অবস্থানরত ওই মানবাধিকারকর্মী আলজাজিরাকে বলেন, ‘আমাদের হাতে আসা এসব তথ্য বলছে ইরানের নিরাপত্তা বাহিনী গোটা দেশে বিচারবহির্ভূতভাবে এত মানুষকে হত্যা করেছে। আমাদের কাছে তথ্য আছে যে, নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে যারা নিহত হচ্ছেন তাদের লাশও পরিবারের কাছে ফেরত দেয়া হচ্ছে না।’

গত শুক্রবার ইরান জ্বালানি তেলের দাম ৫০ শতাংশ বাড়িয়েছে। সরকার এমন ঘোষণা দেয়ার পর গোটা দেশে অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়ে। বিক্ষোভকারীরা বলছেন, একদফায় জ্বালানি তেলের এত মূল্যবৃদ্ধি সাধারণ মানুষের জন্য বিশাল এক চাপ। তবে দেশটির সর্বোচ্চ নেতা বলেছেন, তিনি সরকারের এই সিদ্ধান্তের পক্ষে।

শেয়ার করুন!