কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে এডিবির ১২৭০ কোটি টাকার ঋণ



সিএনবাংলাদেশ অনলাইন :

দেশে কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং রেমিট্যান্স প্রবাহ বৃদ্ধির জন্য ১৫ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। স্কিল ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রামের (এসইআইপি) আওতায় এ ঋণ দেবে এডিবি, বাংলাদেশী মুদ্রায় যা প্রায় ১ হাজার ২৭০ কোটি টাকা। কর্মসূচির আওতায় দক্ষ জনশক্তি তৈরির লক্ষ্যে উপযুক্ত কর্মমুখী প্রশিক্ষণ পাবেন ১২ লাখ ৫০ হাজার নারী ও পুরুষ।

অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি) ও এডিবির মধ্যে পৃথক দুটি ঋণচুক্তির আওতায় এ অর্থ দেয়া হবে। গতকাল রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হয়। ইআরডির অতিরিক্ত সচিব ফরিদা নাসরিন ও এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন পারকাশ ঋণচুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

এদিকে আরবান ডেভেলপমেন্ট প্রিপারেটরি ফ্যাসিলিটি প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ১ কোটি ৭১ লাখ ৫০ হাজার ডলার। এর মধ্যে এডিবি ঋণ হিসেবে দেবে ১ কোটি ১০ লাখ ডলার। অবশিষ্ট ৬১ লাখ ৫০ হাজার ডলার সরকারের তহবিল থেকে সংস্থান করা হবে।

প্রকল্পের কার্যক্রমের মধ্যে রয়েছে তিন পার্বত্য শহর রাঙ্গামাটি, বান্দরবান ও খাগড়াছড়ি এবং কুমিল্লা ও ঈশ্বরদীর ভূপৃষ্ঠের পানি সরবরাহের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা সম্পাদন। সহজ শর্তের ওসিআর ঋণ দেবে। সহজ শর্তেও এ ওসিআর ঋণ পরিশোধের সময়সীমা পাঁচ বছরের গ্রেস পিরিয়ডসহ ২৫ বছর। সুদের হার ২ শতাংশ।

গতকালের অনুষ্ঠানে জানানো হয়, মেশিনশপ, ওয়েল্ডিং ও ইলেকট্রিক্যাল মেইনটেন্যান্স ট্রেডে বিনা মূল্যে প্রশিক্ষণ দেবে বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্র (বিটাক)। প্রশিক্ষণার্থীদের কারখানায় চাকরি পাওয়ায় সহায়তা করা হবে। প্রশিক্ষণার্থীকে ন্যূনতম জেএসসি পাস হতে হবে। প্রশিক্ষণের সব খরচ বহন করবে এসইআইপি। প্রশিক্ষণের মেয়াদ তিন মাস এবং শিল্প-কারখানায় ব্যবহারিক প্রশিক্ষণের মেয়াদ এক মাস।

এ প্রসঙ্গে ইআরডির অতিরিক্ত সচিব ফরিদা নাসরিন বলেন, এডিবি বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম উন্নয়ন সহযোগিতা। বাংলাদেশের বিদ্যুৎ, জ্বালানি, পরিবহন, শিক্ষা, স্থানীয় সরকার, পানিসম্পদ ও সুশাসন খাতে ঋণ দিয়েছে এডিবি। এর মাধ্যমে দেশে কর্মসংস্থানের ও রেমিট্যান্স প্রবাহে গতি আসবে।

জানা গেছে, অবিবাহিতা, তালাকপ্রাপ্তা, দুস্থ ও অসহায় বিধবা ও স্বামী পরিত্যক্তাদের পাঁচটি ট্রেডে প্রশিক্ষণ দেবে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়াধীন মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তর। নার্সারি বা হর্টিকালচার, কৃষি যন্ত্রপাতি মেরামত, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ ও ইলেকট্রনিকস অ্যাসেম্বলিং বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। প্রশিক্ষণের জন্য কোনো ফি নেয়া হবে না। প্রশিক্ষণার্থীদের সরকারি ব্যবস্থাপনায় থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থাও করা হবে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ ২০১৪ থেকে ২০২৪ পর্যন্ত ১০ বছর মেয়াদে ১০৭ কোটি ডলার ব্যয়ে এসইআইপি শীর্ষক কর্মসূচিটি বাস্তবায়ন করেছে। মাল্টিট্রান্স ফিন্যান্সিং ফ্যাসিলিটির (এমএফএফ) আওতায় এ কর্মসূচির জন্য তিন কিস্তিতে সর্বমোট ৩৫ কোটি ডলার দিচ্ছে এডিবির। এর মধ্যে প্রথম কিস্তি ১০ কোটি ডলার এবং দ্বিতীয় কিস্তিতে ১০ কোটি ডলার ঋণ দিয়েছে।

এ বিষয়ে এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন পারকাশ বলেন, দুটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পে ঋণ দিতে পেরে এডিবি আনন্দিত। বাংলাদেশ উচ্চ-মধ্যম আয়ের দেশের কাতারে যাচ্ছে। এখন প্রয়োজন দেশের জনশক্তিকে কাজে লাগানো। এজন্য দক্ষতা বৃদ্ধির বিকল্প নেই। দক্ষ জনবল তৈরিতে এগিয়ে আসবে এডিবি।

শেয়ার করুন!