সংক্রমন এড়িয়ে কোরবানির হাট পরিচালনা করতে প্রশাসনের সতর্কতা জারি



শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি :

করোনাকালে দেশে পশুর হাটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা সাপেক্ষে পশু কেনা-বেচার অনুমতি দিয়েছে প্রশাসন। পশুর হাটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কেনা-বেচা করতে প্রশাসনের রয়েছে কঠোর নজরদারী। মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলেও সোমবার থেকে শুরু হয়েছে কোরবানির পশুরহাট চলবে ঈদের আগেরদিন শুক্রবার পর্যন্ত। আর এ লক্ষে শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রশাসন ও শ্রীমঙ্গল থানা প্রশাসন হাটে স্বাস্থ্যবিধি ও আইনসৃঙ্খলা বজায় রাখতে কাজ করে চলেছেন। শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রশাসন পশু হাটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে সতর্কতা জারি করেছেন।

এব্যপারে শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী অফিসার করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক নজরুল ইসলাম জানান, কোরবানির পশু কেনা-বেচার জন্য অনেককেই হাটে যেতে হবে। এক্ষেত্রে শুধুমাত্র মাস্ক পরে এবং ভীড় এড়িয়ে পশুর হাট থেকে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি অনেকাংশে হ্রাস করা যায়। এছাড়া একটি পশু ক্রয়ের জন্য দলবেঁধে না গিয়ে যুবক শ্রেণির ১/২ জন যেতে পারেন। শিশু এবং বয়স্কদের হাটে না যাওয়াই উচিত হবে। এসময় হাটে বেশি সময় অবস্থান না করে যতদুর সম্ভব দ্রুত সময়ের মধ্যে পশু ক্রয় করে বেরিয়ে আসতে হবে।

তিনি বলেনে, সাগরদিঘি পাড়ের পশুর হাটে ক্রেতা- বিক্রেতা পর্যায়ে সচেতনতার হার মোটামুটি সন্তোষজনক। দু’একজন ছাড়া সবার মুখেই মাস্ক ছিলো। এ অবস্থাটি ধরে রাখতে হবে। তবে আজকে ক্রেতার সংখ্যা কম ছিলো। সামনের দিনগুলোতে ক্রেতার সংখ্যা অনেক বাড়বে। তাই আগামী দু’দিন আমাদের জন্য খুবই কঠিন হবে। এক্ষেত্রে ব্যক্তিগত সচেতনতার কোন বিকল্প নেই। ক্রেতা-বিক্রেতা-ইজারাদারসহ আমাদের সকলের যার যার অবস্থান থেকে নিবিড়ভাবে দায়িত্বশীল হতে হবে।

শেয়ার করুন!