মরহুম নেতাদের স্মরণ করলে পরবর্তী প্রজন্ম আমাদেরকেও স্মরণ করবে : বনমন্ত্রী



ছবি-সিএনবাংলাদেশ।
জুড়ী ( মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি :

পরিবেশ, বন ও জলবায়ূ পরিবর্তনমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন এমপি বলেছেন, দলের মরহুম নেতাকর্মীকে স্মরণ করলে পরবর্তী প্রজন্ম আমাদেরকেও স্মরণ করবে। মানুষ মারা গেলেও অনেক স্মৃতি রেখে যায়। মরহুম নজমুল ইসলাম মাস্টার সাহেব অনেক গুণে গুণাম্বিত ছিলেন। তিনি অত্যন্ত স্পষ্টবাদী ছিলেন। যাকে যা বলার সরাসরি বলে ফেলতেন। খুবই ধর্মপরায়ন ও আওয়ামী লীগের একজন নিবেদিতপ্রাণকর্মী ছিলেন। গণমানুষের এই নেতা জীবদ্দশায় সব সময় এলাকার উন্নয়ন নিয়ে কথা বলতেন। জায়ফরনগর মহিলা মাদ্রাসার এমপিওভুক্তির জন্য অনেক পরিশ্রম করেছেন। আমার ক্ষমতাকালীন সময়ে এই মাদ্রাসাকে এমপিওভুক্ত করার চেষ্টা করব।

তিনি শনিবার দুপুর ১টায় জুড়ী উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়ন পরিষদ মাঠে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা নজমুল ইসলাম মাস্টার স্মরণে শোক সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুস ছালাম-এর সভাপতিত্বে ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মামুনুর রশীদ সাজুর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিছবাহুর রহমান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা এম এ মোঈদ ফারুক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুক আহমদ চেয়ারম্যান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রিংকু রঞ্জন দাস, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক রাব্বী, জুড়ী থানার ওসি সঞ্জয় চক্রবর্তী, জায়ফরনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির দারা, পশ্চিম জুড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি শ্রীকান্ত দাস চেয়ারম্যান, গোয়ালবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রাজকুমার বারই, সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন লেমন চেয়ারম্যান, আওয়ামী লীগ নেতা মাসুক মিয়া, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কিশোর রায় চৌধুরী মনি, পশ্চিম জুড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জুবের হাসান জেবলু, আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম, সাগরনাল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি নজরুল ইসলাম চৌধুরী মাখন, পূূর্বজুড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মইনুল ইসলাম মইন, ফুলতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ যুগ্ম আহবায়ক তাজুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহাব উদ্দিন শাবেল, প্রয়াত নজমুল ইসলাম মাস্টারের প্রথম পুত্র আশরাফুল ইসলাম রাকীন।

সভায় উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর পূর্বে পরিবেশ, বন ও জলবায়ূ পরিবর্তনমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন এমপি মরহুম নেতার কবর জিয়ারত, জেলা পরিষদের নবনির্মিত আধুনিক ডাকবাংলো উদ্বোধন এবং উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর কর্তৃক ভিজিডি’র কার্ড-চাল, দরিদ্র মায়েদের মাতৃত্বকালীন ভাতা ও সেলাই মেশিন বিতরণ করেন।

শেয়ার করুন!