শ্রীমঙ্গলে গুলশান-বনানী সার্বজনীন পূজা ফাউন্ডেশনের মত বিনিময়সহ কম্বল ও মধু বিতরণ



ছবি-সিএনবাংলাদেশ।
শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি :

ভাষার মাসে সম্প্রীতি স্থাপনের লক্ষ্যে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের বিভিন্ন মন্দিরের পূজাকমিটি, পুরিহিত, শ্রীমঙ্গল পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ ও সূধীজনদের সাথে মত বিনিময় করেছেন ঢাকার গুলশান-বনানী সার্বজনীন পূজা ফাউন্ডেশন। এসময় এলাকার ৫শত মানুষের মধ্যে ১৫শত পিস কম্বল ও মধু বিতরণ করেন।

শুক্রবার (১৯ফ্রেব্রুয়ারি) দুপুর থেকে পরদিন শনিবার বিকেল পর্যন্ত তারা এ কার্যক্রম করেন । এসময তারা শ্রীমঙ্গল সাতগাও শ্রীশ্রী মঙ্গলচন্ডি মন্দিরে, আশিদ্রোণ শ্রীশ্রী নির্মাই শিববাড়ী, সবুজবাগ শ্রীশ্রী গোপাল জিউর আখড়া, শহরের হবিগঞ্জ সড়কের শ্রীশ্রী জগন্নাথ জিউর আখড়ায় ও উত্তরশুরস্থ জগৎবন্ধু সুন্দরের নির্মানাধিন মন্দিরে গিয়ে মানুষের মধ্যে কম্বল ও মধু বিতরণ করেন ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, গুলশান-বনানী সার্বজনীন পূজা ফাউন্ডেশনের সিনিয়র সহসভাপতি ও শ্যামলী পরিবহনের এমডি বিশিষ্ট শিল্পপতি রমেশ চন্দ্র ঘোষ, সংগঠনেরর নেতা সুধাংশু কুমার দাশ, অপূর্ব কমুার সাহা, পান্না লাল দত্ত, ইঞ্জি কেশব কুমার রায়, চন্দন চন্দ্র লোদ, বিনয় কৃষ্ণ পোদ্দার, মিহির চাঁদ দে, বনমালী মন্ডল ও অসীম কুমার মজুমদার। এছাড়া স্থানীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার সভাপতি স্বপন রায়, সাধারণ সম্পাদক সুশীল শীল, ডা: হরিপদ রায়, অজয় দেব, শচী বৈদ্য, জহর তরফদার, তুষার কান্তি সরকার, মুকুল দেবরায় ও বিকুল চক্রবর্তী প্রমূখ।
তাদের আগমনে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার পক্ষ থেকে তাঁদের উত্তরীয় পড়িয়ে ও শুভেচ্ছা স্মারক দিয়ে সংবধিত করা হয় । এ সময় গুলশান-বনানী সার্বজনীন পূজা ফাউন্ডেশন এর পক্ষ থেকে প্রত্যেক মন্দিরে তাদের প্রকাশনা ‘বোধন’ উপহার দেন।

রাজধানীর গুলশান-বনানী সার্বজনীন পূজা ফাউন্ডেশনের নেতৃবৃন্দ জানান, প্রতিবছরই তারা দেশের বিভিন্ন এলাকায় মন্দির পরিদর্শন এবং সাধ্যমতো বস্ত্রদান করেন। একইসাথে ওই এলাকার সূধীজনদের সাথে মতবিনিময়ের মাধ্যেমে দ্বিপক্ষীয় সম্প্রীতিও স্থাপিত হয়। এটি তারই একটি অংশ।

শেয়ার করুন!