ধর্ষণের শিকার হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে কিশোরী



প্রতীকী ছবি।
স্টাফ রিপোর্টার, মৌলভীবাজার :

মৌলভীবাজার সদর উপজেলার নাজিরাবাদ ইউনিয়নে ১৩ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় সিলেট এম এ জি ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে ভর্তী করা হয়। বর্তমানে সে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) পরিমল দেব জানান, সোমবার বিকেলে কিশোরী বাড়িতে একা ছিল এই খবর জানতে পারে তাদের পূর্বপরিচিত পার্শ্ববর্তী বাজারের ব্যবসায়ী বাবুল মিয়া (২৮)। এ সংবাদ পেয়ে বাবুল মিয়া মেয়েটিকে একা পেয়ে ধর্ষণ করে। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় মেয়েটিকে উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে সিলেট প্রেরণ করা হয়। মেয়েটি গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসা নিচ্ছে।

সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জিয়াউর রহমান জিয়া জানান, অভিযুক্ত বাবুল মিয়াকে হবিগঞ্জ থেকে আটক করেছে পুলিশ। এই ঘটনা মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধিন আছে।

এ ব্যাপারে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আহমদ ফয়সল জামান জানান, মেয়েটিকে রাতে যখন হাসপাতালে নিয়ে আসা হয় তখন প্রচুর ব্লিডিং হচ্ছিল। ঘন্টাখনিক চেষ্টা করে ব্লিডিং কিছুটা থামিয়ে একটি অপারেশনের প্রয়োজনে সিলেট ওসমানীতে প্রেরণ করা হয়। সিলেট থেকে যে খবর পেয়েছি তাতে জেনেছি ওপারেশন হয়েছে এবং আগামী ২৪ ঘন্টা পর্যবেক্ষণে থাকবে এর পর তার অবস্থা সর্ম্পকে জানা যাবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

শেয়ার করুন!