গৃহবধূর চুল কেটে দেওয়া আ’লীগ নেতা কারাগারে



সিএনবাংলাদেশ অনলাইন :

সিরজাগঞ্জের উল্লাপাড়ায় গৃহবধূকে লাঞ্ছিত ও চুল কেটে নির্যাতনের আলোচিত ঘটনায় প্রধান আসামি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রশিদ অবশেষে সিরাজগঞ্জের আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন।

মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে তিনি আইনজীবীর মাধ্যমে জামিনের আবেদনসহ জৈষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। পরে বিচারক মো. নজরুল ইসলাম তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এরপর দুপুরে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

কোর্ট সাব ইন্সপেক্টর (সিএসআই) প্রদ্যুত কর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

চারিত্রিক স্খলনের অভিযোগ তুলে গত ২৫ নভেম্বর আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রশিদসহ তার সহযোগীরা ওই গৃহবধূকে নির্যাতন করেন। এক পর্যায়ে তার চুলও কেটে দেওয়া হয়। পরে গৃহবধূ কাটা চুল হাতে নিয়ে উচ্ছ্বাস করেন আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রশিদ। এ ঘটনার একটি ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ হলে তা ভাইরাল হয়ে যায়। এরপর ২ ডিসেম্বর নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূ বাদি উল্লাপাড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ নিয়ে সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে ঢাকার আইনজীবী ইশরাত হাসান স্বপ্রণোদিত উচ্চ আদালতের বিচারক এফআরএম নাজমুল হাসান ও বিচারপতি কামরুল কাদেরের দ্বৈত বেঞ্চে নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূকে নিয়ে প্রকাশিত খবর ও ভিডিও ক্লিপ প্রদর্শন করেন। পরে ওই বেঞ্চ নির্যাতিত গৃহবধূর নিরাপত্তায় বুধবারের মধ্যে স্থানীয় প্রশাসনের পদক্ষেপ জানতে চান। আদালতের আদেশের পরই ওই গৃহবধূর নিরাপত্তা জোরদার করে স্থানীয় প্রশাসন।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন মঙ্গলবার দুপুরে বলেন, বুধবারের মধ্যে জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে এ বিষয়ে প্রতিবেদন উচ্চ আদালত বরাবর পাঠানো হবে।

শেয়ার করুন!