সাংবাদিকতার সর্বোচ্চ সম্মান পুলিৎজার জিতল য়ারা



প্রতীকী ছবি।
আন্তর্জাতিক ডেস্ক/

সাংবাদিকতা জগতের সর্বোচ্চ সম্মান হিসেবে খ্যাত পুলিৎজার পুরস্কার জিতেছে এবার নিউ ইয়র্ক টাইমস, ওয়াশিংটন পোস্ট ও বার্তা সংস্থা রয়টার্স। পাশাপাশি নিজ দেশে চলমান যুদ্ধের সংবাদ প্রকাশে ‘সাহসিকতা, সহনশীলতা এবং সত্যনিষ্ঠতার প্রতি অঙ্গীকারবদ্ধ’ থাকায় সম্মান জানানো হয়েছে ইউক্রেনের সাংবাদিকদের। ইউক্রেন যুদ্ধে নিহত ১২ সাংবাদিকের প্রতিও শ্রদ্ধা জানিয়েছে পুলিৎজার বোর্ড।

প্রথা অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটি গতকাল সোমবার ২০২২ সালের পুলিৎজার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করে।

সংবাদের জন্য তিনটি পুলিৎজার জিতে নিয়েছে নিউ ইয়র্ক টাইমস। এর মধ্যে প্রথমটি জিতেছে পুলিশ কর্তৃক গাড়ি থামানোর ঘটনার জেরে প্রাণনাশ হওয়ার সংবাদের জন্য, দ্বিতীয়টি জিতেছে আন্তর্জাতিক প্রতিবেদনের জন্য, সেটি ছিল মধ্যপ্রাচ্যের আকাশ যুদ্ধে মার্কিন বাহিনীর ব্যর্থতা প্রসঙ্গে। আর তৃতীয় পুরস্কারটি দেওয়া হয়েছে সালামিশাহ টিলেটের লেখা সমালোচনার জন্য। শিল্প ও সংস্কৃতি ক্ষেত্রে বর্ণবাদের উপস্থিতি নিয়ে লিখেছিলেন নিউ ইয়র্ক টাইমসের এ প্রদায়ক-সমালোচক।

অন্যদিকে, গত বছরের জানুয়ারিতে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সমর্থকদের কংগ্রেস ভবনে হামলা চালানোর খবর দিয়ে জনসেবা শ্রেণিতে পুরস্কার জিতেছে ওয়াশিংটন পোস্ট।

করোনাভাইরাস মহামারির মুখে বিপর্যস্ত ভারতের ছবি তুলে ফিচার ফটোগ্রাফি শ্রেণিতে পুরস্কার জিতেছে রয়টার্স ও সংস্থাটির একদল আলোকচিত্রী। সেই আলোকচিত্রীদের মধ্যে গত বছর তালেবানের হাতে নিহত দানিশ সিদ্দিকীও রয়েছেন। অন্যরা হলেন, আদনান আবিদি, সানা ইরশাদ মাত্তু ও অমিত দেব।

মায়ামি হেরাল্ড ও টাম্পা বে টাইমস নামে ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের দুটি স্থানীয় পত্রিকাও পুরস্কৃত হয়েছে।

এবারেরটি রয়টার্সের জন্য দশম পুলিৎজার। এর মধ্যে সাতটিই এসেছে গত পাঁচ বছরে। অন্যদিকে, এবারের তিন পুরস্কার নিয়ে মোট ১৩৫টি পুলিৎজার জিতেছে নিউ ইয়র্ক টাইমস। প্রথম পুলিৎজার পুরস্কার ঘোষিত হয়েছিল ১৯১৭ সালে।

সূত্র : এএফপি, রয়টার্স।

শেয়ার করুন!