‘ডাইনি’ নামে ডাকা হয় শ্রুতি হাসানকে!



বিনোদন ডেস্ক/

বলিউডের চলমান বয়কট এবং বাতিলের সংস্কৃতির বিষয়ে মুখ খুললেন দক্ষিণের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও কমল হাসানকন্যা শ্রুতি হাসান। সেই সঙ্গে তাঁর প্রতি সমাজের ঘৃনামূলক বিদ্রূপের বিষয়েও কথা বলেছেন তিনি। তাকে ডাইনি নামে ডাকা হয় জানিয়ে শ্রুতি বলেন, ‘‘যে সমাজে আমরা বাস করি, এই ‘ঘৃণার সংস্কৃতি’ সেটির প্রতিচ্ছবি। ’’

সম্প্রতি ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসকে অভিনেত্রী বলেছেন, ‘এটি কেবল চলচ্চিত্রের বিষয় নয়।

এর অনেক স্তর রয়েছে। হাজারো মানুষ এই ইন্ডাস্ট্রির সাথে জড়িত। অনেক সময় আমরা যা দেখি, তা বাস্তব নয়। ’

শ্রুতির মতে, বয়কট বা বাতিল সংস্কৃতি হলো ধমকানোর একটি সংস্কৃতি, যা দিনে দিনে ‍বৃদ্ধি পাচ্ছে। একদল লোককে তাদের অতীতের কিছু শব্দ প্রয়োগের কারণে আক্রমণ করা এবং গোটা ইন্ডাস্ট্রিকে ক্ষতিগ্রস্ত করাটা অন্যায়। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির কারণে এখন এসব দেখতে হচ্ছে বলেও জানান তিনি। অভিনেত্রী বলেন, ‘মানুষদের বুঝতে হবে যে সমাজে যা কিছু ঘটছে, অনলাইনে সেই সংস্কৃতির প্রতিচ্ছবি দেখছে তারা। সমাজ এখন ঘৃণায় ভরা। সেই ঘৃণা অনলাইনেও ছড়িয়ে যাচ্ছে। ’

অভিনেত্রী আরো জানান যে সামগ্রিকভাবে বিশ্ব একটি নেতিবাচক স্থান হয়ে উঠেছে। ব্যক্তিগতভাবে তাকে যে ধরনের ঘৃণার মুখোমুখি হতে হয় সে সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে তিনি জানান, তাকে ‘ডাইনি’ নামে ডাকা হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তিনিও ঘৃণার শিকার হন। এই ঘৃণার সংস্কৃতি বন্ধ হওয়া উচিত বলেও মনে করেন তিনি।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

শেয়ার করুন!