কারাগারের অফিসকক্ষে বিয়ে হলো হাজতির



গাজীপুর প্রতিনিধি :

নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এ বন্দী এক হাজতির বিয়ে দেওয়া হয়েছে। আদালতের নির্দেশে আজ শনিবার বেলা তিনটার দিকে কারাগারের অফিসকক্ষে এ বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

বর গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার চিনাশুখানিয়া এলাকার আবদুল হকের ছেলে মো. স্বপন মিয়া এবং কনে একই এলাকার আবদুল কাদিরের মেয়ে আয়শা খাতুন। আয়শার করা মামলায় স্বপন ২০১৮ সালের ১৮ ডিসেম্বর থেকে ওই কারাগারে বন্দী রয়েছেন।

কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ সূত্র জানায়, প্রায় দুই বছর আগে শ্রীপুর উপজেলার চিনাশুখানিয়া এলাকার স্বপনের সঙ্গে আয়শা খাতুনের প্রেম হয়। দুজনের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক হয়। একপর্যায়ে বিয়ের আগেই আয়শা অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে স্বপন তাঁদের সম্পর্কের বিষয়টি অস্বীকার করেন। উপায় না পেয়ে ২০১৮ সালের ১২ ডিসেম্বর আয়শা শ্রীপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন। ওই মামলায় চলতি বছরের ২৮ জানুয়ারি উচ্চ আদালত তাঁদের দুজনের বিয়ের নির্দেশ দেন। আজ দুই পক্ষের পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে কারাগারে তাঁদের দুজনের বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে।

গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এর জেলার বাহারুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, উচ্চ আদালতের নির্দেশের কপি গত বৃহস্পতিবার আদালতে পৌঁছায়। সে অনুযায়ী কারাগারের অফিসকক্ষে স্বপন মিয়া ও আয়শা খাতুনের বিয়ের আয়োজন করা হয়। এ সময় বর ও কনের মা-বাবা, তাঁদের এক বছরের ছেলে ও পরিবারের আরও কয়েকজন উপস্থিত ছিলেন। স্থানীয় কাজি আশরাফুল আলম তাঁদের বিয়ে পড়ান।

শেয়ার করুন!