বাংলাদেশে নরেন্দ্র মোদির সফর বাতিলের দাবি জানালেন জাফরুল্লাহ



সিএনবাংলাদেশ অনলাইন :

ভারত সুচিন্তিতভাবে আমাদের বিচ্ছিন্ন করেছে মন্তব্য করে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠান উপলক্ষে বাংলাদেশে নরেন্দ্র মোদির সফর বাতিলের দাবি জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

বুধবার (১০ মার্চ) ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশে আগমনের আমন্ত্রণ প্রত্যাহারের দাবিতে অনুষ্ঠিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ দাবি জানান। জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘আধিপত্য প্রতিরোধ আন্দোলন’ নামে একটি সংগঠন এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, একটা ইতিহাসের কথা দিয়ে আমার বক্তব্য শুরু করতে চাই। ব্রিটিশ সাম্রাজ্য যখন তার শেষ প্রান্তে, তাদের অবসান হতে যাচ্ছে তখন একজন শিক্ষাবিদ এ দেশে এসেছিলেন। উনার একটা অমর উক্তি আছে, ‘ভারতীয়রা গায়ের রঙে ভারতীয় থাকবে, কিন্তু আচার ব্যবহার সর্বক্ষেত্রে সাহেবদের মতো ব্যবহার করবে।’

তিনি বলেন, ‘আজকে ভারত যে চক্রান্ত করছে, তা আমরা মুক্তিযুদ্ধের সময়ে টের পেয়েছিলাম। ওই সময়ে খালেদ মোশাররফ আমাকে বলেছিলেন যে ভারতের বাইরে গিয়ে যুদ্ধ না করলে আমরা কিন্তু সিকিম হয়ে যাব।’

এসময় ‘মোদির গায়ে থু থু না দিয়ে কালো পতাকা’ দেখাতে বলেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘মোদির গায়ে থু থু দেবেন না, কারণ থু থু অস্বাস্থ্যকর, পথ ঘাট নষ্ট হবে, তাকে কালো পতাকা দেখান। তার বিরুদ্ধে আজকে আমাদের সবাইকে সোচ্চার হতে হবে। অন্তত চেষ্টা করা উচিত, প্রতিবাদ করা উচিত।’

ভারত আধিপত্যবাদ খুবই পরিকল্পিতভাবে করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, খালেদা জিয়া প্রথম যেবার প্রধানমন্ত্রী হলেন সেবার আমি বুঝিয়েছিলাম যে ট্রানজিটটা দেবেন না, উনি আমার কথা শুনেছিলেন। কিন্তু ভারত এটা সহ্য করে নাই। ভারত এটা স্বরণ রাখে। দুর্ভাগ্যবশত বিএনপির নেতাদের খালেদা জিয়ার মতো মনোবল নেই।

তিনি বলেন, ‘আজকে সুপরিকল্পিতভাবে ভারত এমনভাবে এগিয়ে যাচ্ছে ভবিষ্যতে তাদের বিরুদ্ধে কথা বলার মতো কেউ থাকবে না। যেভাবে রাজনীতির চরিত্রও হরণ করা হচ্ছে। ফেনী নদীর ওপর দিয়ে ভারতকে ব্রিজটা দিয়ে খুব ভুল করেছে সরকার। বিএনপিকে বলি, তারা কীভাবে হাসিনাকে (প্রধানমন্ত্রী) ফেনী নদীর বিষয়ে রাজি করালো।’

রাজনীতিভাবে রাজনৈতিক জাগরণ না হলে আমাদের কপালে দুঃখ আছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, আজকে আমাদের সব বাংলাদেশি হিন্দু, মুসলমান, খ্রিস্টান, বৌদ্ধসহ সব ধর্মের সবাইকে একত্রিত হতে হবে।

‘আমাদের মাথা উঁচু করে রাখার জন্য কাজ করতে হবে। যেন আমরা সিকিম না হই, কাশ্মিরের মতো অবস্থায় না হয়, আমাদের সবাইকে এক হতে হবে। সম্মিলিত ও একত্রিত হয়ে ছোটখাট সব ভুলে গিয়ে প্রত্যেকের দায়িত্ব ভারতের এ আধিপাত্যের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার। এখন নির্ভর করবে আমাদের কোমরে কতটুকু জোর আছে।’

জাফরুল্লাহ বলেন, ‘সবাইকে বলতে হবে মোদি তোমাকে চাই না, ফিরে যাও। যতদিন না পর্যন্ত তোমার হিন্দুত্ববাদ, সাম্প্রদায়িকতার মনোভাব পরিবর্তন না হবে আমরা ভারতীয়দের দেখতে চাই না। কারণ তারা শুধু তাদের স্বার্থটাই দেখবে।’

শেয়ার করুন!