হাসপাতালে ভর্তি খালেদা জিয়া



ফাইল ছবি।
সিএনবাংলাদেশ অনলাইন :

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে।

সিটি স্ক্যানসহ আরো বেশ কয়েকটি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে নেওয়া হয় খালেদা জিয়াকে। এসব পরীক্ষা ও পর্যবেক্ষণ শেষে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বিএনপি চেয়ারপারসনকে হাসপাতালের ৭২০৪ কেবিনে ভর্তি করা হয়েছে। তার সঙ্গে গৃহকর্মী ফাতেমাও আছেন।

৭৫ বছর বয়সী খালেদা জিয়া করোনার পাশাপাশি অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস, হাইপারটেনশন, রিউমেটিক আথ্রাইটিসসহ আরো কয়েকটি রোগে ভুগছেন।

এ বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, খালেদা জিয়ার করোনা উপসর্গ একেবারে নেই। কিন্তু কিছু পরীক্ষার জন্য তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এর আগে গত ১৫ এপ্রিল রাতে এভারকেয়ার হাসপাতালে খালেদা জিয়ার সিটি স্ক্যান করা হয়। পরে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন জানিয়েছিলেন, সিটি স্ক্যানে মাইল্ড পর্যায়ের সমস্যা ধরা পড়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে সিটি স্ক্যানের ফাইনাল রিপোর্ট দেখে আগের ব্যবস্থাপত্রের সাথে শুধু নতুন একটি ওষুধ যুক্ত করা হয়।

গত ১০ এপ্রিল খালেদা জিয়ার করোনা শনাক্ত হয়, যা পরের দিন সংবাদ সম্মেলন করে জানান দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এরপর দ্রুত ‘বক্ষব্যাধি ও মেডিসিন’ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এফএম সিদ্দিকীরে নেতৃত্বে ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের সমন্বয়ে মেডিকেল টিম গঠন করা হয়। তাদের তত্ত্বাবধানে গুলশানের বাসা ফিরোজায় তার চিকিৎসা শুরু হয়।

করোনা আক্রান্ত হওয়ার ১৪ দিন পর গত শনিবার দুপুরে নমুনা নেওয়া হয় খালেদা জিয়ার। দ্বিতীয় টেস্টের ওই রিপোর্টেও তার করোনা পজিটিভ আসে।

খালেদা জিয়ার চিকিৎসকরা জানান, তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। আগের থেকে ভালো আছেন। কোভিডের ডেঞ্জার পিরিয়ড পার হয়ে গেছে। তিনি আশঙ্কামুক্ত।

গত বছরের ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সাময়িক মুক্তি দেওয়া হয়। এরপর আরও দুইদফা তার মুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হয়।

কারাগার থেকে মুক্তির পর তিনি গুলশানে নিজের ভাড়া বাসা ফিরোজায় থেকে ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নিচ্ছেন। একদিনের জন্যও তিনি বের হননি। করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর দ্বিতীয়বারের মতো চিকিৎসার জন্য বাসার বাইরে বের হলেন তিনি।

শেয়ার করুন!