সিংহাসনে আরোহনের ১ মাস পর জুলু রানির মৃত্যু



ফাইল ছবি।
সিএনবাংলাদেশ ডেস্ক :

দক্ষিণ আফ্রিকার জুলু রাজপরিবার এক ঘোষণায় রানি শিয়িওয়ে মন্টফোমবি দামিনি জুলুর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে।

স্বামী গুডউইল জোয়েলিথিনির মৃত্যুর পর গতমাসেই মন্টফোমবি দক্ষিণ আফ্রিকার সবচেয়ে বড় নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠীটির অন্তবর্তীকালীন শাসক হয়েছিলেন।

ওই দায়িত্ব নেওয়ার ৫ সপ্তাহ পার হওয়ার আগেই ৬৫ বছর বয়সী এ নারীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেল বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি।

জুলু রানির প্রধানমন্ত্রী এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, মন্টফোমবির মৃত্যু রাজপরিবারকে স্তব্ধ করে দিয়েছে, তারা ‘পুরোপুরি শোকাচ্ছন্ন’ হয়ে পড়েছে।

এক কোটি ১০ লাখ জনগোষ্ঠীর জুলু জাতির পরবর্তী শাসকের নাম এখনও ঘোষণা করা হয়নি।

“গভীর শোক ও যন্ত্রণা নিয়ে রাজপরিবার রানি শিয়িওয়ে মন্টফোমবি দামিনি জুলুর অপ্রত্যাশিত মৃত্যুর কথা ঘোষণা করছে,” বিবৃতিতে বলেছেন জুলু প্রধানমন্ত্রী প্রিন্স মানগোসোথু বুথেলেজি।

রানির মৃত্যু হলেও ‘নেতৃত্বের শূন্যতা নেই’ বলে জুলুদের আশ্বস্তও করেছেন তিনি।

সপ্তাহখানেক আগে অসুস্থ রানি মন্টফোমবিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। তবে তার অসুস্থতার ধরন ও রোগের নাম প্রকাশ করা হয়নি।

স্বামীর মৃত্যুর পর চলতি বছরের ২৪ মার্চ জুলুদের নেতা হিসেবে মন্টফোমবির নাম ঘোষণা করা হয়েছিল।

৭২ বছর বয়সী রাজা জোয়েলিথিনি ডায়াবেটিস সংক্রান্ত জটিলতায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন, সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

জোয়েলিথিনি প্রায় ৫০ বছর জুলু জাতির শাসক ছিলেন।

ইসওয়াতিনির রাজা তৃতীয় এমসোয়াতির বোন হওয়ায় মন্টফোমবি জুলু রাজার স্ত্রীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মর্যাদা পেতেন।

জোয়েলিথিনি-মন্টফোমবি দম্পতির ৮ সন্তান। তাদের বড় ছেলে ৪৭ বছর বয়সী প্রিন্স মিসুজুলুই পরবর্তী রাজা হতে যাচ্ছেন বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর খবরে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন!