ছেলের ইটের আঘাতে মায়ের মৃত্যু



ফাইল ছবি।
সিএনবাংলাদেশ অনলাইন :

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর কাজলায় ছেলের ইটের আঘাতে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। তার নাম পারভীন আক্তার (৪৫)। অভিযুক্ত ছেলে সজীব আহমেদ পলাতক রয়েছেন। শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নারীর মেয়ে ঝর্ণা আক্তার জানান, কাজলার উত্তরপাড়া এলাকার একটি বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে থাকতেন পারভীন। রাতে তার সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন সজীব।

একপর্যায়ে তিনি মাকে লক্ষ্য করে ইটের টুকরো ছুড়ে মারেন। এমনকি হাতে ইট তুলে নিয়ে মায়ের মাথায় একাধিক আঘাত করতে শুরু করেন। রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন মা। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে রাত সাড়ে ১০ টায় তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

এদিকে বাগবিতণ্ডা ও হত্যার কারণ সম্পর্কে স্বজনরা দুই রকম তথ্য দিয়েছেন। ঝর্ণার দাবি, তার সাড়ে তিন বছর বয়সী ছোট ভাই আবদুল্লাহ ভাত খাওয়ার জন্য চিৎকার করছিল। এতে বিরক্ত হয়ে মা তাকে পিটুনি দেন। আর ছোট ভাইকে মারধর করা নিয়ে মায়ের সঙ্গে বিবাদে জড়ান সজীব।

তবে নিহত নারীর স্বামী লিটন মিয়া বলছেন, ২৭ বছর বয়সী সজীব কিছুদিন ধরে বিয়ে করতে চাইছিলেন। তাকে কেন বিয়ে দেওয়া হচ্ছে না, এ নিয়ে বাগবিতণ্ডার জের ধরেই খুনের ঘটনা ঘটে।

যাত্রাবাড়ীর সামাদনগর এলাকার একটি ওয়ার্কশপে একসঙ্গেই কাজ করেন বাবা-ছেলে। নিহত নারীর গ্রামের বাড়ি মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ার আড়ালিয়া এলাকায়।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া জানান, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে রাখা হয়েছে। এছাড়া ঘটনাটি যাত্রাবাড়ী থানা পুলিশকে জানানো হয়েছে

শেয়ার করুন!