জামিন পেলেন না শাহরুখপুত্র আরিয়ান খান



ফাইল ছবি।
অনলাইন ডেস্ক/

মাদক-কাণ্ডে জামিন পেলেন না শাহরুখপুত্র আরিয়ান খান। বৃহস্পতিবার আরিয়ানকে ১৪ দিন জেল হেফাজতে থাকার নির্দেশ দেন আদালত। এই রায় ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই শাহরুখ নিযুক্ত আইনজীবী আরিয়ানের অন্তর্বর্তী জামিনের আবেদন করেন। কিন্তু শুক্রবার আদালত তাকে জামিন না দিয়ে হেফাজতে থাকার আদেশ দেন।

তাই আপাতত রুদ্ধদ্বার কক্ষেই দিন কাটাতে হবে আরিয়ানকে। তার দুই সঙ্গী আরবাজ শেঠ মার্চেন্ট এবং মুনমুন ধমেচার জামিনের আবেদনও মঞ্জুর করেননি আদালত। খবর এনডিটিভির।

হোয়াটসঅ্যাপে যে কথোপকথনের জেরে আরিয়ানকে মাদকাসক্ত বলে সন্দেহ করা হচ্ছে, তা নেহাতই ‘নির্দোষ’ ফুটবল নিয়ে ছিল বলে দাবি করেছিলেন আইনজীবী সতীশ মানশিণ্ডে। কিন্তু সরকারি আইনজীবী অনিল সিংহ মনে করছেন, ফুটবল নয়, সাংকেতিক ভাষায় কোনো মাদক চক্রের সঙ্গে কথোপকথন চালাতেন আরিয়ান। সে বিষয়টি আরও খতিয়ে দেখতেই তাকে নিজেদের হেফাজতে চেয়েছিল নরকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো।

আরিয়ানকে জামিন দিলে তথ্যপ্রমাণ নয়ছয় হতে পারে এবং তদন্ত প্রক্রিয়ার ব্যাঘাত ঘটতে পারে। শুক্রবার আদালতে এই যুক্তি দেখিয়েছেন অনিল সিংহ। অন্য দিকে আরিয়ানের আইনজীবীর পাল্টা যুক্তি, প্রভাবশালী পরিবারের ছেলে মানেই তথ্যপ্রমাণ নয়ছয় করবেন, তা ধরে নেওয়া ভুল।

আপাতত আরিয়ান এবং বাকি অভিযুক্তরা তিন থেকে পাঁচ দিন আর্থার জেলে নিভৃতবাসে থাকবেন। এরই মধ্যে সেখানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে তাদের। দু’পক্ষের আইনজীবীর যুক্তি-পাল্টা যুক্তি একসময়ে ঝগড়ার আকার নেয়। কিন্তু আপাতত এগিয়ে থাকলেন অনিল সিংহ। তবে আরিয়ানের গ্রেপ্তারের পেছনে রাজনীতি রয়েছে বলে ধারণা করছেন অনেক রাজনৈতিক নেতা ও তারকা।

শেয়ার করুন!