সাকিব-মোস্তাফিজদের জন্য মনোবিদ রাখছে আইসিসি



ক্রীড়া ডেস্ক/

দীর্ঘদিনের বায়ো বাবল ক্রিকেটারদের উপর মানসিক প্রভাব ফেলছে। অনেকেই মানসিক অবসাদে ভুগছেন। ক্রিস গেইলের মতো ক্রিকেটার যে কারণে আইপিএলের মাঝপথে পাঞ্জাব টিম ছেড়েছেন। সে কথা মাথায় রেখেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ক্রিকেটারদের জন্য মনোবিদ রাখার বন্দোবস্ত করল আইসিসি।

সাধারণত প্রতিটি দলের সঙ্গেই মনোবিদ থাকে। তবে এবারের বিশ্বকাপে আইসিসি থেকেই রাখা হবে মনোবিদ। যেন বায়ো-বাবলের অভ্যন্তরে থাকার কারণে ক্রিকেটারদের মানসিক স্বাস্থ্যে নেতিবাচক প্রভাব না পড়ে। গতকাল আইসিসির কর্মকর্তা অ্যালেক্স মার্শাল জানিয়েছেন এই খবর।

আইসিসির ইনটিগ্রিটি ইউনিট প্রধান মার্শাল আসন্ন বিশ্বকাপে বায়ো-বাবল ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে আছেন। কিছু লোক যে বায়ো-বাবল ভাঙবে, সেটা নাকি তারা ধরেই নিয়েছেন। তেমন কিছু ঘটলে কীভাবে তারা মোকাবিলা করবেন সেটা মাথায় রেখেই পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলে জানান মার্শাল, ‘আমরা ধরে নিয়েছি যে নিয়ন্ত্রিত পরিবেশের কারণে কিছু লোকের মানসিক স্বাস্থ্যে ব্যাঘাত ঘটবে। তাদের সাহায্য করার জন্য মনোবিদের ব্যবস্থা রাখছে আইসিসি। চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে যখন ইচ্ছে তারা মনোবিদের সঙ্গে কথা বলতে পারবে।’

গতকাল ভার্চুয়াল মিডিয়া সেশনে মার্শাল আরও বলেন, ‘এই সমস্যায় কেউ পড়লেই যেন সেটা দলের মধ্যেই চিহ্নিত করা যায়, সে ব্যবস্থাও রাখছি আমরা। প্রতিটি দলের চিকিৎসকরা যেন নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় খেলোয়াড়দের দেখাশোনা করতে পারে সে ব্যবস্থাও থাকবে। এর বাইরে আমাদের আইসিসির পক্ষ থেকে সার্বক্ষণিক মনোবিদ থাকবে।’

একই সঙ্গে একটা ভালো খবরও দিচ্ছে আইসিসি। বিশ্বকাপের সময় ক্রিকেটাররা তাদের পরিবার নিয়েই থাকতে পারবেন টিম হোটেলে। মার্শালের কথায়, ‘পরিবারের সদস্যরা কিন্তু মানসিক অবসাদ কাটানোর একটা বড় ফ্যাক্টর। যে কারণে আমরা ক্রিকেটারদের পরিবারের সদস্যদের থাকার অনুমতি দিচ্ছি। তবে, ওরা কোয়ারান্টিন পর্ব কাটিয়ে তবেই যোগ হতে পারবে পরিবারের সঙ্গে। এবং তাদের কোভিড রিপোর্ট নেগেটিভ থাকতে হবে।’

শেয়ার করুন!