সিলেট জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি প্রত্যাখান করে বিক্ষোভ, সমাবেশ ও সড়ক অবরোধ



সিলেট প্রতিনিধি :

সিলেট জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি প্রত্যাখান করে মিছিল সমাবেশ ও সড়ক অবরোধ করেছে দলের একাংশ নেতাকর্মীরা। এসময় জেলা ছাত্রলীগের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক রাহেল সিরাজের নাম উল্লেখ করে বিভিন্ন ধরণের কটুক্তিমুলক স্লোগান দেন প্রতিবাদকারী নেতাকর্মীরা। তাদের দাবী কেন্দ্র থেকে বড় অংকের টাকার বিনিময়ে অযোগ্য ব্যক্তিদের এই কমিটিতে স্থান দেওয়া হয়েছে। তারা এই শীর্ষ পর্যায়ের পদ বিক্রির তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) দুপুর ১২টার দিকে কেন্দ্র থেকে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে টিলাগড় গ্রুপের নাজমুল আলম ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তেলিহাওর গ্রুপের রাহেল সিরাজের নাম ঘোষনা করা হয়।

এছাড়া মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে দর্শনদেউড়ি গ্রুপের কিশওয়ার জাহান সৌরভ ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে কাশ্মির গ্রুপের নাঈম আহমদের নাম ঘোষণা হয়।

এছাড়া কেন্দ্রীয় সদস্য হিসেবে ঘোষণা করা হয় ছয় জনের নাম। তারা হলেন- জাওয়াদ ইবনে জাহিদ খান, বিপ্লব কান্তি দাস, মুহিবুর রহমান মুহিব, কনক পাল অরূপ, হোসাইন মোহাম্মদ সাগর ও সঞ্জয় পাশী জয়।

এই কমিটি ঘোষণার পর ছাত্রলীগের একাংশের মধ্যে চরম ক্ষোভ দেখা দেয়। তেলিহাওর গ্রুপের রাহেল সিরাজ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ পেলেও গ্রুপের অভ্যন্তরে অসন্তোষ চরমে পৌঁছায়।

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান নিয়ন্ত্রিত তেলিহাওর গ্রুপের বড় অংশের নেতাকর্মীরা রাহেল সিরাজের পরিবর্তে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে চেয়েছিলেন জাওয়াদ ইবনে জাহিদ খানকে। কিন্তু জাওয়াদকে সাধারণ সম্পাদক না করে কেন্দ্রীয় সদস্য করায় গ্রুপটির নেতাকর্মীরা বিকেল ৪টায় তেলিহাওর থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন।

মিছিলটি নগরীর জিন্দাবাজার আল-হামরা মার্কেটের সামনে আসলে পুলিশ মিছিলকারীদের বাধা দেয়। পুলিশী বাধা উপেক্ষা করে মিছিলটি সামনে অগ্রসর হয়। চৌহাট্টা পয়েন্টে গিয়ে বিক্ষোভকারী নেতাকর্মীরা টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করেন। কিছু সময় সড়ক অবরোধ শেষে ফিরে যান তারা।

শেয়ার করুন!