হাতুড়ে ডাক্তারের অপচিকিৎসায় প্রসূতি নারী ও নবজাতকের মৃত্যু



লাখাই/হবিগঞ্জ/প্রতিনিধি/

লাখাই উপজেলার শিবপুরে হাতুরে ডাক্তারের অপচিকিৎসায় প্রসূতি নারী ও নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে সময়মতো চিকিৎসা না পেয়ে তারা মারা যায়। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টার দিকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ওই গ্রামের কাসেম মিয়ার স্ত্রী বিলকিছ বেগম (৩০) মারা গেলে তার স্বজনরা এ অভিযোগ করেন।

তারা জানান, বিলকিছ বেগম প্রসূতি নারী। বৃহস্পতিবার সকালে তার ব্যথা শুরু হলে পল্লী চিকিৎসক মোবারক মিয়ার ফার্মেসীতে নিয়ে যান। সেখানে যাবার পর মোবারক মিয়াসহ এক দাই নারী তাকে ইনজেকশন ও স্যালাইন পুশ করলে ঘণ্টাখানেক পর নবজাতক জন্ম নেয় এবং ওই নারীর রক্তক্ষরণ শুরু হয়। ঘণ্টাখানেক পরে সে মারা যায়। এক পর্যায়ে তাকে হাতুড়ে ডাক্তার হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে আসার পরামর্শ দেয়। দুপুরের দিকে সদর হাসপাতালে নিয়ে এলে নার্স ও আয়া তাকে চিকিৎসা না দিয়ে ফেলে রাখে। তবে ডাক্তার এসে তাকে সিলেট রেফার্ড করে। তবে তারা দরিদ্র্য পরিবারের হওয়ায় সিলেট নিতে পারেননি। বিনা চিকিৎসায় বিকাল ৪টার দিকে বিলকিছ মারা যান।

জরুরি বিভাগের ডাক্তার জানান, তার অবস্থা খুবই সংকটাপন্ন ছিলো। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে সে মারা যায়। বিলকিছের স্বজনরা জানিয়েছেন এ বিষয়ে তারা আইনের আশ্রয় নিবেন।

শেয়ার করুন!