শ্রীমঙ্গলে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস পালিত



শ্রীমঙ্গল/মৌলভীবাজার/প্রতিনিধি/

‘ঐতিহ্যগত বিদ্যা সংরক্ষণ ও বিকাশে আদিবাসী নারী সমাজের ভূমিকা’ এ প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে শ্রীমঙ্গলে ‘আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস’ পালিত হয়। এ উপলক্ষে অনুষ্ঠিত হয় র‌্যালী, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

মঙ্গলবার (৯ আগষ্ট) সকাল সাড়ে ১০টায় বৃহত্তর সিলেট ত্রিপুরা উন্নয়ন পরিষদের উদ্যোগে ‘আর্ন্তজাতিক আদিবাসী দিবস’ উপলক্ষে আয়োজিত র‌্যালীর উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়। এসময় আদিবাসী বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর নারী, পুরুষ, শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন দাবি দাওয়া নিয়ে ব্যানার,ফেস্টুনসহ র‌্যালীতে অংশগ্রহণ করেন। র‌্যালীটি শহরের গুরুত্ব পূর্ন সড়ক প্রদক্ষিন শেষে স্থানীয় মহসিন অডিটোরিয়ামে এসে সমাপ্ত হয়।

বৃহত্তর সিলেট ত্রিপুরা উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি জনক দেববর্মা’র সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক সুমন দেববর্মা’র সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন বৃহত্তর সিলেট ত্রিপুরা উন্নয়ন পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রবীর দেববর্মা। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) সভাপতি ও অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক কবি দীপেন্দ্র ভট্রাচার্য, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাজী লিটন আহমেদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিতালী দত্ত, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার নেতা জহর তরফদার, ক্যাথলিক মিশনের পুরোহিত ফাদার নিকোলাস বাড়ৈ সিএসসি, খ্রীষ্টান এসোসিয়েশনের সভাপতি ডমিনিক সরকার রনি, বৃহত্তর সিলেট ত্রিপুরা উন্নয়ন পরিষদের উপদেষ্টা চিত্তরঞ্জন দেববর্মা, আদিবাসী নেতা সামুয়েল জোসেফ হাজং, খাসি সোশ্যাল কাউন্সিলের সাধারন সম্পাদক এলিসন সুঙ প্রমুখ।

আলোচনা সভা শেষে বিভিন্ন আদিবাসী সাংস্কৃতিক দলের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় সংগীত ও নৃত্য অনুষ্ঠান।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আদিবাসী জনগোষ্টির খাসি, ত্রিপুরা,গারো, সাঁওতাল, মুন্ডা ও চা জনগোষ্টি সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, ও সুশীল সমাজের ব্যক্তিবর্গ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন ভাষা, ধর্মাচার, পারিবারিক জীবন ব্যবস্থা সবকিছুতেই ভিন্নতা নিয়ে বসবাসকারী আদিবাসীরা আজো এদেশে ভূমির মালিকানা পায়নি। আদিবাসী নেতারা বলেন, ভূমি উন্নয়নের নামে তাদের উচ্ছেদ করা হচ্ছে, তারা দিন দিন ভূমিহীন হয়ে পড়ছে। আদিবাসীরা স্থায়ী আবাস ভূমি থেকে বঞ্চিত। আদিবাসীরা প্রতিনিয়ত শোষন, বঞ্চনা বৈষম্যের শিকার হচ্ছে। আদিবাসীরা এদেশে উপজাতি বা ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী নয় বরং সাংবিধানিকভাবে সমান নাগরিক অধিকারের দাবিদার বলে নেতারা উল্লেখ করেন।

শেয়ার করুন!