সিলেটে নিশাত হত্যা মামলার রায়ে দুজনের আমৃত্যু কারাদণ্ড ও দুজনের যাবজ্জীবন



মো. রেজওয়ান করিম সাব্বির/

সিলেটের জৈন্তাপুরের বহুল আলোচিত চাঞ্চল্যকর উসমান গনি নিশাত (১৭) হত্যাকাণ্ডের রায় প্রকাশ করেছেন অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ আদালত সিলেট। বুধবার (১০ আগস্ট) প্রকাশিত রায়ে দুজনের আমৃত্যু কারাদণ্ড, দুজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড করেন এবং একজনকে খালাস প্রদান করা হয়েছে।

আদালত সূত্র জানায়, বুধবার বিকাল ৩টায় অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ আদালত সিলেটের আলোচিত উসমানগনি নিশাত হত্যাকাণ্ডের রায় ঘোষণা করেন। দীর্ঘ শুনানি, যুক্তিতর্ক ও স্বাক্ষী-প্রমাণের ভিত্তিতে আদালত সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের লক্ষীপ্রসাদ কান্দিগ্রামের সৌদিআরব প্রবাসী মন্তাজ আলী ওরফে ময়না ছেলে উসমান গনি নিশাত হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সরাসরি জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ায় আদালতে উপস্থিত তিন আসামির সম্মুখে রায় প্রকাশ করেন। তার মধ্যে রেজওয়ান আহমদ(২৮) ও দুলাল আহমদকে (৪২) আমৃত্যু কারাদণ্ড এবং বকুল (৪২) নাজিমকে (৩৫) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেন। তবে আরেক আসামি হোসেন আহমদকে (৪৫) খালাস প্রদান করেন আদালত।

এদিকে, নাজিম উচ্চ আদালত হতে জামিন মুক্ত হয়ে বিচারকার্য ও রায়ের আগেই দেশ ত্যাগ করে বিদেশে পালিয়ে যান। বকুলও একইভাবে পলাতক রয়েছেন। তবে তিনি কোথায় আছে তা জানা যায়নি।

বুধবার রায় ঘোষণার পর নিহত নিশাতের পিতা সৌদিআরব প্রবাসী মন্তাজ আলী ময়না বলেন, আদালতের রায়ে তিনি ও তার পরিবার সন্তুষ্ট। রায়টি দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানান তিনি আদালতের কাছে।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সনের ৩০ জুন বাড়ী হতে পার্শ্ববর্তী কানাইঘাট উপজেলার চতুল বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয় করতে গিয়ে উসমান গনি নিশাত (১৭) খুন হন। পরে ২ জুলাই কানাইঘাট উপজেলার দূর্গাপুর উচ্চবিদ্যালয়ের দক্ষিণ পার্শ্বে সুতারি খাল হতে জবাই করা ও বুকে আঘাতপ্রাপ্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ঐ ঘটনায় উসমান গনি নিশাতের পিতা মন্তাজ আলী ময়না বাদী হয়ে কানাইঘাট থানায় হত্যা মামলা করেন।

শেয়ার করুন!