শ্রীমঙ্গলে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের নাম ব্যবহার করে এক বয়োবৃদ্ধকে মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ



শ্রীমঙ্গল/মৌলভীবাজার/প্রতিনিধি/

শ্রীমঙ্গলে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের নাম ব্যবহার করে এক বয়োবৃদ্ধকে মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার দুপুরে শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে এ অভিযোগ করেন উপজেলার রামনগর এলাকার মৃত বারেক মিয়ার ছেলে বয়োবৃদ্ধ আবুল কালাম (৭৫)।

তিনি সংবাদ সম্মেলনে লিখিত অভিযোগে বলেন, তার এলাকার মৃত ওয়াব উল্লার স্ত্রী ও মৃত মুক্তিযোদ্ধা শহীদ আলমের বোন মনোয়ারা বেগম (৫৫) ও তার মেয়ে শাহানা আক্তার বিগত ২০ বছর থেকে ১৫ শতক ভূমি দখলের মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে তার বিরুদ্ধে একের পর এক মামলা দিয়ে হয়রানি করে চলেছেন। এতে মনোয়ারা বেগম তার ভাই মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান উল্লেখ করে মানুষের সহানুভূতি পেতে তার ও তার প্রতিষ্ঠিত মাদ্রাসার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করে যাচ্ছেন বলে আবুল কালাম অভিযোগে বলেন।
তিনি বলেন,মনোয়ারা বেগমের স্বামী ওয়াব উল্লাহ ও তার ভাসুর ছোয়াব উল্লাহ তাদের যৌথ স্বাক্ষরে ১৯৭৬ সালে ৩৬১৩ নং দলিল মূলে এসএ রেকর্ড এর ৪৩ শতক ভূমি থেকে ১৫ শতক ভূমি বিক্রি করেন ছুরুতুন্নেছা বেগমের নিকট। এভাবে এই ১৫ শতক ভূমি পরবর্তীতে ৫ বার বিক্রি হয়। ৬ষ্ঠ ক্রেতা হিসেবে এই ১৫ শতক ভূমি তিনি ১৯৮২ সালে ৩৪১৪ নং দলিল মূলে জনৈক আনোয়ারা বেগমের নিকট থেকে ক্রয় করেন। এরপর বিআরএস সেটেলমেন্ট জরিফে তার নামে এই ১৫ শতক ভূমি রেকর্ডভুক্ত হয়। এভাবে তিনি তার পরিবার নিয়ে ভূমির উপর বসত ভিটা নিমার্ণ করে বসবাস করে আসলেও বিগত ২০০২ সাল থেকে মনোয়ারা বেগম এই ১৫ শতক ভূমি নিয়ে আদালতে একের পর এক মিথ্যা মামলা দায়ের করে ও সরকারি দপ্তরের মিথ্যা অভিযোগের জবাব দিতে দিতে তিনি ক্লান্ত ও নি:স্ব হয়ে পড়েছেন বলে অভিযোগ করেন।
আবুল কালাম আরও বলেন,মনোয়ারা বেগম বিগত ২০১১ সালে মৌলভীবাজার জুডিসিয়াল আদালতে তার বিরুদ্ধে ৩০১ নং একটি পিটিশন মামলা করলে আদালত তৎকালীন সহকারী কমিশনার (ভূমি) শ্রীমঙ্গল মো.গোলাম মওলাকে সরজমিন অনুসন্ধানী প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ প্রদান করেন। তিনি সরজমিন তদন্ত করে আবুল কালাম বৈধভাবে ক্রয়কৃত ১৫ শতক ভূমির উপর বসবাস করছেন মর্মে আদালতে প্রতিবেদন দেন। কিন্তু মনোয়ারা বেগম এ রিপোর্ট প্রত্যাখ্যান করে ও স্থানীয় শালিসের রায় না মেনে তাকে নাজেহাল করছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে আবুল কালাম অভিযোগ করেন।
এসময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, আবুল কালামের ছেলে মাওলানা আলমগীর হোসেন,এলাকার মসুক মিয়া ও সাদিকুর রহমান। উল্লেখ্য গত ৩০ আগষ্ট শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে মনোয়ারা বেগম মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জমি দখল শিরোনামে আবুল কালামের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেন।

শেয়ার করুন!