Sex Cams

এবার লক্ষ্য টি-টোয়েন্টি সিরিজ



স্পোর্টস রির্পোটার :

একমাত্র টেস্টে ইনিংস ও ১০৬ রানে এবং ৩ ম্যাচ ওয়ানডেতে হোয়াইটওয়াশ করার পর সংক্ষিপ্ততম ফরমেটে ২ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এ পর্যন্ত টি-টোয়েন্টিতে রোডেশিয়ানদের বিপক্ষে ১১ বারের সাক্ষাতে ৭ জয় পেয়েছে টাইগাররা এবং হেরেছে ৪টিতে।

সাম্প্রতিক সময়ের ব্যর্থতা কাটিয়ে টেস্ট ও ওয়ানডেতে সাফল্যের ধারায় ফিরেছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। এবার তাদের সামনে অপেক্ষা করছে টি-টোয়েন্টির চ্যালেঞ্জ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৯ ও ১১ মার্চ মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে দুম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। হোম অব ক্রিকেটে টি-টোয়েন্টি সিরিজের ম্যাচগুলো শুরু হবে সন্ধ্যা ৬টা থেকে।

এর আগে সর্বশেষ পাকিস্তান সফরে ব্যর্থ হয়ে ফেরে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। অবশ্য তার আগে টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ প্রথম ভারত জয় করে। ভারতের মাটিতে তাদের বিপক্ষে লড়াই ক্রিকেটের সবচেয়ে কঠিন কাজগুলোর একটি। গত বছর ৩ নভেম্বর দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়াম, যেটি একসময় ফিরোজ শাহ কোটলা মাঠ বলে পরিচিত ছিল, সেখানে বাংলাদেশ ভারতকে ৭ উইকেটে হারায়।

নবম ম্যাচে এসে ভারতের বিপক্ষে প্রথম জয় ছিল সেটি, যা আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির ইতিহাসের এক হাজারতম ম্যাচ। ২০০৫ সালে শুরু হওয়া আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম সংস্করণের হাজারতম ম্যাচটি স্মরণীয়ই করে রাখলেন মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা। তাও আবার দলের দুই প্রাণভোমরা সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালকে ছাড়াই। যদিও প্রথম জয় ধরা দিতে পারত ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপে। ব্যাঙ্গালোরে অনুষ্ঠিত ওই খেলায় শেষ ওভারে মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহর ভুলে নিশ্চিত জেতা ম্যাচ এক রানে হেরে যায়। সেই ট্র্যাজেডির যেন মধুর প্রতিশোধই নিলেন দলের সবচেয়ে অভিজ্ঞ দুই ব্যাটসম্যান।

একমাত্র টেস্টে ইনিংস ও ১০৬ রানে এবং ৩ ম্যাচ ওয়ানডেতে হোয়াইটওয়াশ করার পর সংক্ষিপ্ততম ফরমেটে ২ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এপর্যন্ত টি-টোয়েন্টিতে রোডেশিয়ানদের বিপক্ষে ১১ বারের সাক্ষাতে ৭ জয় পেয়েছে টাইগাররা এবং হেরেছে ৪টিতে।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে সাফল্যে ফেরার লক্ষ্যে দলও ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে অধিনায়ক করে ঘোষিত এ দলে এসেছে বেশ কয়েকটি পরিবর্তন। নতুন মুখ হিসেবে সুযোগ পেয়েছেন বিপিএল দিয়ে আলোচনায় আসা নাসুম আহমেদ। সদ্য সমাপ্ত বিপিএলে নজরকাড়ার পর প্রথমবারের মতো জাতীয় দলে ডাক পেলেন এ ক্রিকেটার।

এছাড়া জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এ সিরিজ দিয়ে দলে ফিরেছেন মুশফিকুর রহিমও। যিনি নিরাপত্তা ইস্যুতে পাকিস্তান সফর থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন। চোট কাটিয়ে দীর্ঘদিন পর ফিরেছেন অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন। এ ৩ জনের ফেরার বিপরীতে বাদ পড়েছেন মোহাম্মদ মিঠুন, নাজমুল হোসেন শান্ত ও রুবেল হোসেন।

বাংলাদেশ স্কোয়াড : মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, নাঈম শেখ, লিটন কুমার দাশ, মুশফিকুর রহিম, আফিফ হোসেন ধ্রুব, সাইফউদ্দিন, মেহেদী হাসান, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, মোস্তাফিজুর রহমান, শফিউল ইসলাম, আল আমিন হোসেন, হাসান মাহমুদ, নাসুম আহমেদ।
জিম্বাবুয়ে স্কোয়াড : চামু চিভাভা (অধিনায়ক), সিকান্দার রাজা, ক্রেইগ আরভিন, টিনাশি কামুন হুকামুয়ে, উইসলে মাধেভের, টিমিসেন মারুমা, ক্রিস্টোফার এমপোফু, চার্ল মুম্বা, টিনোটেন্ডা মুতোম্বোজি, রিচমন্ড মুতুম্বামি (উইকেটরক্ষক), অ্যাইনসলে লোভু, ব্রেন্ডন টেইলর, ডোনাল্ড তিরিপানো, চার্ল্টন শুমা ও শন উইলিয়ামস।

শেয়ার করুন!